প্রিয়া সাহাকে নিয়ে মুখ খুললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

asaduzzamanগত বুধবার প্রিয়া সাহা নামে বাংলাদেশের এক নাগরিকের মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে করা নালিশের পরিপ্রেক্ষিতে আজ শুক্রবার বাংলাদেশের বেসরকারি টেলিভিশনকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

দেশ থেকে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সম্প্রদায় সংক্রান্ত যে নালিশ করা হয়েছে সে বিষয়টি একটি চক্রান্ত ও উদ্দেশ্যমূলক।’

আজ ১৯ জুলাই শুক্রবার বিকালে রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শনে গিয়ে প্রিয়া সাহার বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত বরার্ট মিলার।

এর আগে গত বুধবার ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার বিভিন্ন দেশের ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখানে ১৬টি দেশের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। তখন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাও মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান।

এরপর ওই সাক্ষাৎকালে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বলা প্রিয়া সাহার বক্তব্য ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বলছেন- ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান গুম (ডিসঅ্যাপেয়ার) হয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে রক্ষা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি।’

কারা এমন নিপীড়ন চালাচ্ছে?- ট্রাম্পের এমন প্রশ্নের জবাবে প্রিয়া সাহা বলেন, ‘দেশটির মুসলিম মৌলবাদীরা এসব করছে। তারা সবসময় রাজনৈতিক আশ্রয় পাচ্ছে।’