এবার কাজের বুয়াও যুক্ত হচ্ছে অ্যাপে

buaরাজধানীতে অ্যাপ ভিত্তিক যাত্রী পরিবহণ সেবা চালু হওয়ায় পরিবহণখাতে ভোগান্তী কমেছে অনেকটাই। এবার এরই ধারাবাহিকতায় “রোবট ডাকো” নামের একটি প্রতিষ্ঠান কাজের বুয়ার চাহিদা পূরণ করবে অ্যাপে।

অ্যাপটি ব্যবহার করে যে কেউ কাজের বুয়ার প্রোফাইলের রিভিউ আর রেটিং দেখে ঘন্টা প্রতি অথবা কাজ প্রতি বুয়া ডাকতে পারবেন। আর এই সেবার সব থেকে আকর্ষনীয় দিক হলো, মাত্র তিরিশ মিনিটেই বুয়া পৌঁছে যাবে উল্যেখিত বাসায়। শুধু কাজের বুয়া নয়, বেবি সিটার, বিউটিউশিয়ান, টিউটর আর নিত্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের কেনাকাটার নিজস্ব সার্ভিসম্যানও ত্রিশ মিনিটে পাওয়া যাবে রোবট ডাকো অ্যাপে।

রোবট ডাকো’র উদ্যোগতা মাহমুদুল হাসান লিখনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে ইন্টারনেটকে ব্যবহার করে অনেক সমস্যাই সমাধান হচ্ছে। রাইড শেয়ারিং সেবা চালু হওয়ায় যেমন নগরীর পরিবহণ ব্যবস্থায় পরিবর্তন এসেছে, ঠিক সেভাবেই আমরা কাজের বুয়া সহ বিভিন্ন সার্ভিসম্যান একই প্ল্যাটফর্মে এনে এই খাতের সমস্যাটিও সমাধানের চেষ্টা করছি। কারণ নগরের বেশীরভাগ বাসিন্দাই কাজের বুয়াদের কাছে জিম্মি ছিল এতদিন। নতুন বছরেই আমরা এই সেবা সবার জন্য উন্মুক্ত করতে চলেছি।

নগরীর বাস্তবতায় কাজের বুয়া এবং গ্রাহকের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো সংশয় আছে কিনা জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির সহ-উদ্যোগতা মেহেদী স্মরণ জানান, এ ধরনের সেবায় সবসময়ই চ্যালেঞ্জ রয়েছে। তবে অ্যাপে ইমার্জেন্সি বাটন যোগ করে ঝুঁকি কমিয়ে আনা হয়েছে অনেকটাই। এছাড়াও যেহেতু সার্ভিসম্যানরা মুক্তপেশাজীবি নন, সেহেতু তাঁদের প্রত্যেককে আমদের তত্ত্বাবধায়নে প্রফেশনাল ট্রেইনিং দেয়া হচ্ছে, যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা যেন সহজেই মোকাবেলা করা যায়। তা ছাড়াও বেশ কিছু সেবা আমরা পোর্টেবল সিসি টিভি ক্যামেরার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করবো।

আপাতত রোবট ডাকোর ‘অন ডিমান্ড ডেইলি নিডস ইন থার্টি মিনিট” সেবাটি মোহাম্মদপুরের বাসিন্দারা উপভোগ করতে পারবেন। এজন্য গুগোল প্লে স্টোরে “robot dako” লিখে সার্চ করতে হবে।